Updates from July, 2014 Toggle Comment Threads | Keyboard Shortcuts

  • এসপ্রেসো 2:12 pm on July 15, 2014 Permalink | Reply
    Tags: গাজা   

    গাজা 

    10378922_706050232765383_7013965835207716282_nনিচের লেখাটি কবীর সুমনের ফেসবুক থেকে নেয়া। আমি লিখলেও হয়তো তার মূলভাব এই লেখার মূলভাবের থেকে আলাদা কিছু হতো না। তবে এর থেকে ভালো আর সহজ করে বুঝানোটা কঠিন হতো, তাই কবীর সুমনের লেখাটাই তুলে দিলাম –

    শুনুন, আমি সোজা একটা কথা বলি – আজকে যদি আমি বা আপনি গাজা উপত্যকায় জন্মাতাম। আমরা যদি আমাদের বাল্যকাল এবং কৈশোর ঐরকম প্রতিকূল অবস্থার মধ্যে কাটাতাম তাহলে আমি আপনাকে বলছি, আমি বসে বসে দুধ ভাত খেতাম না; আমি শান্তির বাণী বা ভালো ভালো কথা আওড়াতাম না।

    আমি আততায়ী যে আক্রমণকারী তাকে বধ করার কথা ভাবতাম। ধরুন আমার দেশে আমি যদি একটা লোককে আত্রুমণ করি বা কেউ যদি আমাকে আক্রমণ করে তাহলে আমরা আত্মরক্ষার জন্যে তো আমরা পরস্পর কে হত্যা করতে পারি। আর সেই হত্যার বিষয়টি ম্যানসস্লটার হবে তবে তার জন্যে শাস্তি হবে লঘু। বড় কোনো শাস্তি হবে না।

    কাজেই যারা গাজা স্ট্রিপের মানুষ, যে শিশুরা সেখানে জন্মনিয়েছে তাদের কে কিন্তু জিজ্ঞাসা করা হয়নি ওহে শিশু তোমরা গাজা উপত্যকায় জন্মাতে চাও নাকি তেলআবিবে জন্মাতে চাও? সেই সব শিশুতো গাজায় জন্মেছে তাদের বাল্যকাল কাটছে সেখানে। তারা দিনের পর দিন দেখেছে কি নিষ্ঠুর ভাবে তার চোখের সামনে মা, ভাই, বোন, বাবা বা আত্মীয় স্বজন বন্ধু বা প্রতিবেশীরা মারা যাচ্ছে।

    এবার সেই শিশুটি যখন যুবক হবে সে তখনকি করবে? সেই যুবকটি কি তখন গীত গাইবে! না, সে চুপকরে বসে থাকবে না বা গান গাইবে না; সে অস্ত্র হাতে তুলে নেবে। আর এই টুকু মানবতা এখনও আছে, আর মানবতা আছে বলেই গাজা উপত্যকার স্বজনহারা প্রতিটি মানুষ লড়াই করছে। মানবতা আছে বলেই ইসরাঈল ও মার্কিনীদের মোকাবেলায় গাজার স্থানীয় মানুষ লড়াই করছে বীরের মতো।

    আর আমার এই কথাগুলোকে কেউ যদি মনে করেন আবেগ তাড়িত, তাহলে আমার কিছু বলার নেই। হ্যাঁ আমি আমার আবেগ ব্যক্ত করছি সত্যের পক্ষে। আমি একটা ষাট বছর বয়সী আধবুড়ো নই, আমি বৃদ্ধ; আমি দেখেশুনে ক্ষেপে গেছি আর তাই যা মুখে আসে তাইব লছি একথা সত্য নয়; যা ঐতিহাসিক সত্য আমি তাই স্বাধীনভাবে ব্যক্ত করছি।

    গাজার সাধারণ মানুষ ঘাসে মুখ দিয়ে চলেনা। আর সেটা ইসরাঈল খুব ভালো করে জানে। আর তাই তারা গাজায় আত্রুমণ করছে। তবে আমি প্রান্তিকে এসে স্পষ্ট করে বলবো, ইসরাঈল কোনোদিন পারবে না; পারবে না !

     
    • Md.Golam Kaw sar Mithu 6:39 pm on July 23, 2014 Permalink | Reply

      কোনদিন পারবে না।

  • এসপ্রেসো 9:00 am on August 9, 2013 Permalink | Reply
    Tags: ঈদ   

    eid
    ঈদ মোবারক, কফিহাউজের সকল কফিদের ঈদের অনেক অনেক শুভেচ্ছা ও ভালোবাসা জানাই।

     
    • ভাঁড়ের চা 2:33 pm on August 9, 2013 Permalink | Reply

      আপনাকেও অনেক শুভেচ্ছা আর ভালবাসা।

      • এসপ্রেসো 9:14 pm on August 9, 2013 Permalink | Reply

        :sungkem

    • ক্যাপাচিনো 4:31 am on August 10, 2013 Permalink | Reply

      ঈদ মোবারক এবং সেই সঙ্গে অনেক শুভেচ্ছা ও ভালোবাসা আমার তরফ থেকেও :thanks2

      • এসপ্রেসো 8:07 pm on August 10, 2013 Permalink | Reply

        :selamat ঈদ মোবারক

    • ক্যাফে লাতে 4:20 am on August 11, 2013 Permalink | Reply

      আমি অনেকদিন পরে সবাইকে ঈদের শুভেচ্ছা জানাচ্ছি। অনেকদিন পরে তো কি হয়েছে, জানাচ্ছি তো 🙂

      • এসপ্রেসো 8:11 pm on August 12, 2013 Permalink | Reply

        :ngacir2 আহা, কি কপাল আমাগর…(হি হি হি..ঈদ মোবারক)

  • চাফি 1:13 pm on July 8, 2013 Permalink | Reply  

    ৪ ঠা জুলাই 

    “সবাইকে ৪ঠা জুলাইয়ের শুভেচ্ছা। সেই ৪ঠা জুলাই যা বিশ্বের সবচেয়ে শক্তিশালী এবং অভিনবত্ত অর্জনকারী দেশের জন্মদিন। প্রতিটি সংবিধানে সাধারনতঃ সাম্য, মর্যাদা এবং সকলের সমান সুবিধার মত গুরুত্তপূর্ণ বিষয়গুলি কেবল নিয়মের বেড়াজালেই আটকে থাকে – আমেরিকা এমন একটি রাষ্ট্র যেখানে সংবিধান অনুসরণ করতে বাধ্য করা হয় এবং কেবলমাত্র নিয়মাবলী হিসেবে ফেলে রাখা হয় না। তাই এই দিনে আমাদের রাষ্ট্রপিতাদের – জন অ্যাডামস, বেঞ্জামিন ফ্র্যাঙ্কলিন, আলেক্সাণ্ডার হ্যামিলটন, জন জে, থমাস জেফারসন, জেমস ম্যাডিসন এবং জর্জ ওয়াশিংটন – সম্মান জানান একান্ত জরুরি।”

    ভাববেন না এগুলো আমার কথা – আমি তো কেবল অনুবাদ করেছি মাত্র। আদপে লিখেছেন একজন মার্কিন ভদ্রলোক, ৪ঠা জুলাইয়ের আবেগে ভেসে গিয়ে। তবে কিনা শুনেছি কয়েক বছর আগে তিনি বাঙালি ছিলেন। আমার সাথে বাংলায় কথাও বলেছেন। এখন মনে হয় ভুলে গেছেন। আমেরিকার নাগরিকত্ত নেওয়ার সময় অনেক কিছু ভুলতে হয় মনে হয়। যে দেশ এঁকে শিখিয়ে পড়িয়ে এই পর্যায়ে নিয়ে গেল (নরেন্দ্রপুর রামকৃষ্ণ মিশন এবং তারপর খড়গপুর), যে উনি সাহেবি সুরে ইংরেজি বলতে শুরু করলেন, সেই কৃতজ্ঞতার কথা মনে করে একটুও গলা ভিজল না? গায়ের রং কি ঠান্ডার দেশে থেকে একটু বেশি ফরসা হয়ে গেল? নাগরিকত্তের শপথ গ্রহনের পরেই কি ৪ঠা জুলাইয়ের সকালটা অন্যরকম হল? কে জানে। জয় আমেরিকা। আমরা তোমাকে সিনেমার পর্দায় ভালোবাসি, তোমার পরিষ্কার ছবির মত রাস্তাঘাট ভালোবাসি, ভালোবাসি ডলারের ভার। শালা একটা নোংরা, পচা, দুনম্বরি (সরি, তিন-নম্বরি) দেশে জন্ম হয়েছিল বলে লজ্জা হয়। আমি এখন এক অন্য পৃথিবীতে থাকি।

     
    • ভাঁড়ের চা 3:12 pm on July 8, 2013 Permalink | Reply

      আজকেই ভাবছিলাম বাঙ্গালীদের ইংরেজী প্রীতি নিয়ে একটা পোষ্ট দেব! আগেই এসে গেল। তাহলেও দেব। ক’দিন পর। সত্যজিৎ রায়ের একটা লেখা মনে পড়ছে,তবে হুবহু বলতে পারছি না, দেখে বলব। লেখাটা এরকম– ভুলতে চাইলে বাংলা তিন মাসেই ভোলা যায় ইত্যাদি। এমন সময়ে খড়্গপুর, নরেন্দ্রপুরের কথা মনে পড়ে নাকি !

      • চাফি 10:20 am on July 9, 2013 Permalink | Reply

        আপনি কি সোনার কেল্লার কথা বলছেন? আমার তো কামু মুখার্জির সেই ডায়লগ মনে পড়ে গেল।

    • ভাঁড়ের চা 3:22 pm on July 9, 2013 Permalink | Reply

      বোধ হয় সেটাই। তাহলেও একবার নিশ্চিত হতে চাই। রসদ মজুদই আছে। তাহলেও একটু দেরী হবে, পড়তে হবে।

    • ক্যাফে লাতে 7:40 am on July 11, 2013 Permalink | Reply

      হেহেহেহে…আমার ভাই একবার বলেছিল, ওদের এক বন্ধুর কথা। সেই বন্ধুটি জনৈক সহপাঠীর সপর্কে বলেছিল –
      পতা হ্যায় ইসকা লাইফ কা এইম ক্যা হ্যায়?
      —-ম্যায় বড়া হোকে ফরেনার বননা চাহতা হুঁ !!!! :ngakak

      • চাফি 8:36 am on July 11, 2013 Permalink | Reply

        বাহ – এই তো চাই। পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন দেশ। ডলার। তারপর আর কি সে দেশের মাঠি কামড়ে পড়ে থাকা। এই ভিসা নিয়ে পাবলিক যে কত রকমের দুনম্বরি করে যে ভাবলেও মাথা হেঁট হয়ে যায়।

    • ক্যাফে লাতে 7:44 am on July 11, 2013 Permalink | Reply

      এই বিষয়ে আমার এক আত্মীয়ার কথাও মনে পড়ে গেল। তিনি যেকোন জিনিষের বিষয়ে আলোচনা করতে গেলেই বলেন- ‘আমেরিকাতে এটা এইরকম পাওয়া যায়, ওটা বেশি ভাল, সেটা বেশি সুন্দর। তাঁর আমেরিকা প্রীতির জন্য আরেক আত্মীয় তাঁর সম্পর্কে বলেছেন- ওর দেহটা ভারতে, মনটা আমেরিকায়। 🙂

      তা কিছুদিন আগে, কিছু রান্না বান্না নিয়ে আলোচনার সময়ে এক রান্নার বিশেষ এর উপাদানের কথা শুনে তিনি আমাকে বললেন- কোথা থেকে পেলি? এটা তো আমেরিকা ছাড়া পাওয়া যায় না। আমি বললাম, কে বলেছেন যায়না? আমি নিউ মার্কেট থেকে কিনেছি। কোন বিদেশী ব্র্যান্ড ও নয়। লোকাল প্রোডাক্ট। তাতে তিনি যারপরনাই অবাক হয়েছেন

      • চাফি 8:37 am on July 11, 2013 Permalink | Reply

        সেটা আসলে কি প্রোডাক্ট ছিল?

        • ক্যাফে লাতে 6:42 pm on July 11, 2013 Permalink | Reply

          রসুনের গুঁড়ো 🙂

  • ক্যাপাচিনো 6:53 pm on June 14, 2013 Permalink | Reply
    Tags: ইতিহাস, , , বিজ্ঞান,   

    ঐতিহাসিক উত্তরাধিকার 

    এইমাত্র একটা মজার খবর পড়লাম – গুগল নিউজের পাতায় ওপরের দিকেই ছিল বলেই বোধহয় নজরে পড়ে গেল। আর খবরটাও নজিরবিহীন। প্রিন্স উইলিয়াম – যিনি কিনা ব্রিটিশ সিংহাসনের দাবীদার, তাঁর জন্মসূত্রে নাকি ভারতীয় পরিচয় পাওয়া গিয়েছে। ব্যাপারটা কিরকম? না একধরনের মাইটোকন্ড্রিয়াল জিন আছে যা নাকি মায়ের কাছ থেকে সন্তানের মধ্যে চলে আসে। সেই সূত্র ধরে খুঁজতে খুঁজতেই এই আবিষ্কার – কারন এমন একটি জেনেটিক কোড আছে যা নাকি ভারতীয় হতে বাধ্য।

    এখন এই জেনেটিক আবিষ্কারের সূত্র ঘাঁটতে গিয়ে দেখা গেছে – উইলিয়ামের মা ডায়নায় উর্ধতন পঞ্চম পুরুষ থিওডর ফোর্বস (1788-1820) ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানির আমলে ভারতে আসেন এবং সুরাটে থাকাকালীন এক ভারতীয় মহিলাকে পরিচারিকা নিযুক্ত করেন, যার নাম এলিজা কেওয়ার্ক। তাঁরা কখনও বিয়ে করেননি, কিন্তু তাঁদের প্রথম কন্যা ক্যাথরিনের বংশধর হলেন এক কালের হাইনেস, প্রিন্সেস ডায়না। এই রিসার্চ করেছেন এডিনবরা বিশ্ববিদ্যালয়। ইতিহাস ও বিজ্ঞান – দুই দিক থেকেই এই আবিষ্কার চাঞ্চল্যকর বটে।
    মজার কথা হচ্ছে এই যে ব্রিটিশ জাত আমাদের উপমহাদেশ দাপিয়ে মাড়িয়ে শোষন করে গেছে দুই শতাব্দী, সেই জাতের রাজপরিবারের সাথে সম্পর্ক বেরিয়ে পড়ায় আমাদের কি ভারতীয় হিসেবে খুব একটা গর্ব হওয়া উচিত? জানি না। আমার যুক্তরাজ্য (ইউনাইডেট কিংডম – অর্থাৎ ইংল্যান্ড, ওয়েলস, স্কটল্যান্ড এবং নর্দার্ণ আয়ারল্যান্ড) ভ্রমণ ও সেখানে বেশ কিছু সময় থাকার অভিজ্ঞতা কিন্তু উলটো কথা বলে। সেখানে আইরিশ, স্কটিশ ও ওয়েলসরা কিন্তু একেবারেই ব্রিটিশদের ভালো চোখে দেখে না। ব্রিটিশ জাত যে শুধু ভারতীয় উপমহাদেশ বা অন্যান্য উপনিবেশে ছড়ি ঘুরিয়েছে তা নয় – নিজের প্রতিবেশীদেরও এক কালে কম জ্বালায় নি। তবে কিনা আমরা তো শেষমেষ ভারতীয়, কাজেই এই ঘটনা হ্যাংলাপনা করে মুখ দিয়ে লাল ঝরিয়ে, গাল ভরিয়ে অনেক কথা হয়তো পত্র পত্রিকায় দেখা যাবে – কারন ইতিমধ্যেই গুজরাটে নাকি খোঁজ শুরু হয়ে গিয়েছে রাজকুমারের পিসতুতো / মামাতো / কাকাতো ভাইয়ের খোঁজ। সত্য সেলুকাস, কি বিচিত্র এই দেশ।


    তথ্যসূত্র:
    ১) ইকোনমিক টাইমস
    ২) ইন্ডিপেন্ডেন্ট


     
    • চাফি 8:17 pm on June 14, 2013 Permalink | Reply

      হা হা হা, তাও ভালো উনি কলকাতায় ছিলেন না। আজকাল তো কলকাতায় ঐতিহাসিকের অভাব নেই, কোথা থেকে কি বেরিয়ে পড়ত কে জানে।

      • ক্যাফে লাতে 5:27 am on June 15, 2013 Permalink | Reply

        আচ্ছা চাফি, কলকাতায় কবিদের অভাব নেই বলে জানতাম, ঐতিহাসিকদেরও অভাব নেই? কি কান্ড!

    • ক্যাফে লাতে 5:27 am on June 15, 2013 Permalink | Reply

      হয়ে গেল !! এবার ন-মো বাবুকে প্রধাণ মন্ত্রী হওয়া থেকে কেউ আটকাতে পারবে না। এমনিতেই তো আমাদের সাদা চামড়া দেখেলেই চোখ চকচক, জিভ সকসক করে। দেখ গে যাও, এবার খোঁজ শুরু হবে ন-মো ভাই ডায়নার কিরকমের তুতো দাদা হন!

      • ক্যাপাচিনো 7:24 pm on June 15, 2013 Permalink | Reply

        যাচ্চলে উনি তো হিন্দু!!! :mewek এরকম দূর সম্পর্কের ভাই বেরোলে রাজনৈতিক ভবিষ্যতের দফারফা হয়ে যাবে না? কি যে বলো!

        • ক্যাফে লাতে 1:21 am on June 17, 2013 Permalink | Reply

          এই মূহুর্তে উনি হিন্দু পরে, আগে গ্লোবালাইজ্‌ড্‌ নেতা। তো ওনার একটা গ্লোবালাইজড্‌ বোন বা বোনপো থাকতে পারে না? :shakehand2

          তবে এর থেকেও গুরুত্বপূর্ণ খবর যেটা, সেটা হল যে গত শনিবার রাতে খবরে দেখলাম এক হিন্দি সংবাদ চ্যানেল হই হই-রই-রই করে বলছে, ডায়নার বড় ছেলে রাজা হওয়া মানে হল এক ভারতীয় রাজকুমারের বৃটিশ সিংহাসনে বসা। বুড়ি রানীমার এতসব এই বয়সে সহ্য হলে হয় 🙂 সিল্কের হ্যাট ঠিক করতে করতে মনে মনে নির্ঘাত ভাবছেন – বড় ছেলের প্রথম বৌটা হাড় বজ্জাত। মরার আগে কেচ্ছা-কেলেঙ্কারি করে গেল, এখন বেটি মরেও সগ্‌গ থেকে ব্যাম্বু দিচ্ছে। 😀 পুরো ‘রসময়ীর রসিকতা’ -আ লা বাকিংহ্যাম স্টাইল !!

          তবে বৈজ্ঞানিক দিক থেকে ব্যাপারটা ইন্টারেস্টিং এই কারণে যে যে জিনটার কথা বলা হচ্ছে, সেটা নাকি একমাত্র মায়ের শরীর দিয়েই পরের প্রজন্মে ছড়িয়ে পড়ে। যেহেতু ডায়নার কোন মেয়ে নেই, তাই এই ‘নেটিব রক্ত’-এর বাকিংহ্যামে ঢোকার এই শুরু এবং শেষ। রানীমা এক কাজ করতে পারেন, নীল রক্তের সম্মান বাঁচাতে চার্লসের দুই ছেলেকেই ত্যাজ্য নাতি করতে পারেন 😀 আর অন্য কাউকে মুকুট দিয়ে যেতে পারেন।

          আরেকটা দিক নিয়ে এখনো সেরকম কোন আলোচনা হয়েছে কিনা জানিনা। ডায়নার সেই ২০০ বছর আগের পূর্বসূরী নাকি আদতে আর্মেনিয় মহিলা ছিলেন। তাহলে কি আর্মেনিয়ানরাও দাবি করবে , যে উইলিয়াম তাদেরও রাজপুত্তুর? শেষ মেশ লড়াই না লেগে যায়, কাদের অধিকার বেশি …তাহলে পুরো হাওড়া পুলিশ -কলকাতা পুলিশ কেস হয়ে যাবে! :thumbup

          • ক্যাপাচিনো 2:14 pm on June 17, 2013 Permalink | Reply

            তা বটে, পলিটিকাল মাইলেজ নেওয়ার জন্য লোকে ঠিক কোন পর্যায়ে যেতে পারে আমার কোন ধারনা নেই। তার ওপর শুনেছি ওনার পাবলিসিটি নাকি কোন বিলিতি কোম্পানি করে। আজকাল বিজেপি তে যা খেও খেওয়ি চলে তাতে এরকম একটা কিছু দরকার হয়ে উঠতে পারে বৈকি। কে জানে পুরোটাই সাজান ঘটনা কিনা।

            আবার এও ভাব পাঁচ পুরুষ আগে কি হয়েছে, তাই নিয়ে এত হুজুগ কিসের কে জানে?

  • ক্যাফে লাতে 5:17 am on June 14, 2013 Permalink | Reply
    Tags: , সোনার দাম   

    অর্থমন্ত্রী চিদাম্ববরম সবাইকে বলছেন আগামি এক বছর সোনা কিনবেন না। কারণ। প্রতি আউন্স সোনা কিনতে আমাদের ডলার খরচা করতে হয়। কারণ ভারতে তো সোনার খনি নেই। একবছর সোনা না কিনলেই নাকি আমাদের দেশের কারেন্ট অ্যাকাউন্টের অবস্থা খুব ভাল হয়ে যাবে। আর এই যে ডলারের তুলনায় টাকার দাম কমে যাচ্ছে, এইসব সমস্যা মিটে যাবে।
    এতে আমার কোন সমস্যা নেই। আমার থার্মোমিটার ও নাই্‌ বার্ণল ও নাই (যারা এটা বুঝলে না, তাদের বলি, রেফার টু ভানু বন্দ্যো )…সোজা কথায়, আমার টাকাও নাই, তাই সোনা কেনার স্বপ্নও নাই। কিন্তু আমি ভাবছি, সোনার ব্যবসাদারদের কথা, সেইসব কন্যাদায়গ্রস্ত বাবা-মায়েদের কথা, যাঁদের সামাজিক অবস্থান নির্ধারিত হয় মেয়েকে কত সোনা দিয়েছেন তার ওপর, আর সেইসব অগণিত মহিলা এবং পুরুষদের কথা, যাঁরা মনে করেন সোনা পরে ঘুরে বেড়ানো এবং নিয়মিত সোনা কেনা তাঁদের অবশ্য কর্তব্যের মধ্যে পরে (এর মধ্যে অবশ্যই আছেন আমাদের বাপ্পীদা) !
    হেব্বি চাপ বুঝলে! ভেবে দেখলাম, এই সমস্যা থেকে আমাদের এক মাত্র বাঁচাতে পারে দেব (যাকে আবার কেউ কেউ বলে দেভ! ) এই সবে আফ্রিকা থেকে ঘুরে এসেছে…দু-চারটে সোনার খনির সন্ধান পেয়ে থাকলেও থাকতে পারে আমাদের হিরো!

     
    • ক্যাপাচিনো 10:32 am on June 14, 2013 Permalink | Reply

      আমিও ওনাকে পাল্টা একটা কথা বলতে পারি – এত চুরি চামারি বন্ধ করুন, দেশের তহবিল ফাঁক করে সুইস ব্যাঙ্ক ভরা বন্ধ করুন – তাহলেও টাকার দাম অনেক বাড়বে।

      সোনা কেনার ব্যাপারটা এই প্রথম শুনলাম – সেক্ষেত্রে ব্যাপারটা নিশ্চয়ই পেট্রোলিয়ামের ক্ষেত্রেই প্রযোজ্য।

    • ক্যাফে লাতে 12:33 pm on June 14, 2013 Permalink | Reply

      আরে এই খবরটা আমি আজকেই টিভিতে খবরে দেখেছি সকালে। চিদাম্বরম সাহেভ সকাতরে অনুরোধ জানাচ্ছেন- আপ্নারা দয়া করে এক বছর সোনা কিনবেন না 🙂
      পেট্রোলের ক্ষেত্রে কতটা সেটা অবশ্য ঠিক জানিনা। তবে হ্যাঁ, সাথে সুখবর- রান্নার গ্যাসের দাম আরো বাড়ছে।

      • ক্যাপাচিনো 1:02 pm on June 14, 2013 Permalink | Reply

        এই খবরটা আর কাউকে পড়াই না পড়াই আমার বউকে অবশ্যই পড়াতে হবে। এবছর আবার আমার বোনের বিয়েও আছে। তার হবু শ্বশুরবাড়িতেও পৌঁছে দিতে হবে দেখছি।

    • চাফি 8:16 pm on June 14, 2013 Permalink | Reply

      এ তো দেখি ভালো কারবার – যারা দেশকে দেউলিয়া করছে, তাদের মুখে কি এইসব মানায়? আমার তো বহুব্রীহি উপন্যাসের কথা মনে পড়ে গেল। যেখানে এক রিটায়ার্ড ভদ্রলোক মৎস দপ্তরে গিয়ে উপদেশ দিয়েছিলেন যে এক বছর ইলিশ না খেলে নাকি বাংলাদেশের সব সমস্যার সমাধান হয়ে যাবে।

  • চাফি 3:58 pm on May 25, 2013 Permalink | Reply
    Tags: নজরুল   

    একটি আদর্শের জন্ম 

    আজকের দিনটা শেষ হতে আরও অল্পক্ষন বাকী আছে, কাজেই পোস্টটা এখনও দেওয়াই যায়।

    কদিন আগে ফেসবুকে এদিক ওদিক করছি – দেখি একটি বাংলা পেজ। বিভিন্ন জোকস ও কার্টুন। ভাবলাম দেখি। দেখতে দেখতে অবাক হলাম সহজ সাধারন হাস্যরসাত্তক পোস্টের মধ্যে আছে একাধিক পোস্ট যেখানে ভারতীয়দের প্রতি ঘৃণা উগরে দেওয়ার জন্য রয়েছে বেশ কিছু ছবি, যেগুলো ভারতীয় হিসেবে মেনে নেওয়া অত্যন্ত অবমাননাজনক। যাই হোক, বিতর্ক উস্কে দেওয়ার জন্য সেকথা বলছি না। আমি বেশ কিছু ভারতীয় পেজও দেখেছি যেখানে পাকিস্থানকে নির্বিচারে গালি দেওয়া হয়। সেখানেও সঙ্গে থাকে ফটোশপ করা কিছু পোস্ট। পাকিস্থানেরও এরকম পেজ থাকা অস্বাভাবিক নয়। প্রশ্ন সেটা নয়। টেকনোলজির হাত ধরে দিনের পর দিন এগিয়ে চলেছি – অথচ অনর্থক কিছু অভিমান আঁকড়ে ধরে থাকব, এই মানসিকতার থেকে বেরোতে পারিনা আমরা কেউই। এমনকি ইন্টারনেরটের মত এই চমৎকার প্লাটফর্ম, যেখানে কিনা দেশের বেড়াজাল মুছে গেছে – সেখানেও বের করে আনছি নিজেদের ভেতরে লুকিয়ে থাকা তীব্র সাম্প্রদায়িক গরল। এই উপমহাদেশ কি সেই সংকীর্ণতা থেকে বেরিয়ে, মৌলবাদ ঝেড়ে ফেলে একটি সুস্থ সমাজ উপহার দিতে পারে না – যাতে উন্নতি হয় সাধারন মানুষেরই? এই ঘৃণার বীজ কার জন্য?

    একটি জাতি – ধরে নিচ্ছি জিনগত ইতিহাস মেনে নিয়ে এই উপমহাদেশের মানুষ নিজেদের ভাই ভাবতে পারেন – কি বেঁচে থাকার জন্য ঘৃণাকে আশ্রয় করবে না যুক্তিনির্ভর বিজ্ঞানকে সেটা নির্ধারন করতে হবে তাদেরকেই। আজকে ২৫ শে মে – কবি কাজী নজরুলের জন্মদিন। তাঁর স্মৃতিতে হয়তো অনেক উৎসব হচ্ছে, পালিত হচ্ছে সাংষ্কৃতিক অনুষ্ঠান। কিন্তু তার আগে যে কবির দিয়ে যাওয়া আদর্শের পালন অনেক জরুরী – সেটা কি আমরা মনে করি না? সাহিত্যকীর্তির দিক থেকে অমরতা লাভ করার আগেও, যে সাম্যের বীজ বপন করে গেছে তাঁর আদর্শ, আমার তো মনে হয় সেই আদর্শের জন্মলগ্নই আমাদের পালন করা উচিত, শুধু নামে নয় – কাজেও।
    কফিহাউজ একটি মুক্ত প্লাটফর্ম মনে করে সাহস নিয়ে এই পোস্ট দিলাম।

     
    • ক্যাপাচিনো 10:13 am on May 26, 2013 Permalink | Reply

      এই জিনিসটা আমিও খেয়াল করেছি।

    • এসপ্রেসো 11:35 pm on May 27, 2013 Permalink | Reply

      অতি আনুষ্ঠানিকতায় আদর্শ ধামাচাপা পড়ে যায় ।

    • চা পাতা 5:53 am on June 19, 2013 Permalink | Reply

      বাংলু-দের এই অনর্থক ভারত বিরোধিতা দিন দিন বাড়বে বই কমবে না। আমাদের ওরা ফেলতেও পারবে না, মুছতেও পারবে না।

  • ক্যাফে লাতে 11:38 am on May 22, 2013 Permalink | Reply
    Tags: , সাভার   

    ব্র্যান্ডেড জামার বড্ড দাম … 

     

    03_img_02891

    কফিহাউজে হাল্কা আড্ডাই দেব,ভেবে রেখেছিলাম। কিন্তু এই ছবিটা শেয়ার না করে পারলাম না। এঁদের নাম কেউ জানেনা, জানেনা এঁদের মধ্যে কি সম্পর্ক। কিন্তু মৃত্যুর এই ছবি বড্ড কষ্ট দিল মনে।

    এর পর থেকে শপিং মলে ব্র্যান্ডেড জামা কিনতে গেলে এঁদের কথা কি একবারও ভুল করে মনে পড়বে না …

    (ফটোগ্রাফারের কথা শুদ্ধ ছবি এই পাতায়ঃhttp://lightbox.time.com/2013/05/08/a-final-embrace-the-most-haunting-photograph-from-bangladesh/#1 )

    মনে পড়ল, অনেকদিন আগে এইরকম আরেকটা ছবি দেখে খুব জোর ধাক্কা খেয়েছিলাম। সেই ছবিটাও আজও ভুলতে পারিনা।

     
    • ব্ল্যাক কফি 6:26 pm on May 24, 2013 Permalink | Reply

      ছবিটা ভীষণ কষ্টদায়ক

      • ব্ল্যাক কফি 6:31 pm on May 24, 2013 Permalink | Reply

        আমার তোলা এক খানা ছবি আছে যা মনকে নাড়া দেয়, তবে এখানে কি ভাবে দেব খুঁজে পেলাম না !

    • ক্যাপাচিনো 7:02 pm on May 24, 2013 Permalink | Reply

      মর্মান্তিক। কিন্তু কিছু বলার নেই।

  • ক্যাফে লাতে 3:19 am on May 18, 2013 Permalink | Reply
    Tags: আই-পি-এল,   

    আই-পি-এল ক্যাঁচড়া 

    আই-পি-এল এর কেঁচো খুঁড়তে যা সব কেউটে বেরোচ্ছে, তা খবরের কাগজে পড়ে আমি ভাইকে বললাম – এইবার যদি আই-পি-এল নামক এই সার্কাসটা বন্ধ হয় !!
    তাতে আমার ভাই বলেছে – বন্ধ হবে না, বরং বেটিং লিগ্যাল হয়ে যাবে।
    এই বিষয়ে চা-কফিদের কি মত?

     
    • ক্যাপাচিনো 7:48 am on May 18, 2013 Permalink | Reply

      দেখো – সমস্যটা বেটিং না কারন সেটা অনেক ক্ষেত্রেই হয়।বন্ধুদের মধ্যে বাজি লড়া দিয়ে। কিন্তু সমস্যা হচ্ছে টাকার অঙ্কটা যদি বাড়তে বাড়তে এমন জায়গায় গিয়ে পৌঁছয় যে তাই নিয়ে আসল খেলাটাই গড়াপেটা হয়ে যায় – যেটা আকছার হচ্ছে।
      ক্রিকেটাররা এত অর্থে ভেসে গিয়েও যদি নিজেদের পেশাদারিত্তকে সম্মান করতে না পারেন তাহলে দর্শক তো আগ্রহ হারাবেই – আমি তার একটা বড় উদাহরন। একসময় ক্রিকেট বড় ভালো লাগত – বেটিং এর এই দিকটা সামনে আসার পর থেকে টিভির সামনে বসলেই মনে হয় সময় নষ্ট হচ্ছে। এটা আমি সেই প্রথম আমলের ক্রিকেট বেটিং ফাঁস হওয়ার কথা বলছি – যখন হ্যান্সি ক্রোনিয়ে মারা গেলেন। অনেক বছর আগের কথা।

    • চাফি 4:21 pm on May 25, 2013 Permalink | Reply

      আই পি এল এর ফাইনালটা বন্ধ হয়ে গেল না?

    • ক্যাফে লাতে 3:14 pm on May 26, 2013 Permalink | Reply

      বন্ধ!! দিব্বি চলছে এখন। চাইলে টিভি খুলে দেখ।

  • ক্যাফে লাতে 1:08 am on May 2, 2013 Permalink | Reply
    Tags: , সত্যজিৎ রায়   

    আজ তাঁর জন্মদিন । ঘুরে ফিরে যাঁর কাছে বহু কিছুর জন্য ফিরে যেতে হয় বাঙালিকে। রূপকথা থেকে রাজনীতি – সমস্তকিছুই বন্দী তাঁর ক্যামেরার ভাষায়। আজকের এই দুর্দিনে দাঁড়িয়ে, মনে হল এই গানের কথা। রূপকথার থেকে উঠে আসে, কিন্তু আজও প্রাসঙ্গিক – খুব বেশি করে!

    ধন্যবাদ সত্যজিৎ রায়। যেখানেই থাকুন, ভাল থাকুন।

     
    • এসপ্রেসো 1:41 am on May 2, 2013 Permalink | Reply

      :rose: শুভ জন্মদিন সত্যজিৎ রায় :rose:

      ক্যাফে লাতেকেও ধন্যবাদ ।

      • ক্যাপাচিনো 7:02 am on May 2, 2013 Permalink | Reply

        Satyajit Ray

        আজকের গুগল ডুডল টিও অসাধারন।

        • ক্যাফে লাতে 7:59 am on May 2, 2013 Permalink | Reply

          ওহ এটা তো খেয়াল করিনি। কি সুন্দর। এই নস্টালজিয়া যাওয়ার নয় কোনদিন

          • ক্যাপাচিনো 8:43 am on May 2, 2013 Permalink | Reply

            গুগল ইন্ডিয়া যে এই সম্মান জানিয়েছে আর তাও এত সুন্দরভাবে, তাতেই ভালো লাগছে।

    • ক্যাপাচিনো 5:46 am on May 4, 2013 Permalink | Reply

      ভিডিওটা আগে অফিস থেকে দেখতে পাইনি। আজকে বাড়িতে বসেও দেখতে পাচ্ছি না। লিঙ্কটা ঠিক আছে তো?

    • ক্যাফে লাতে 12:45 am on May 6, 2013 Permalink | Reply

      যাহঃ বাবা। যেদিন লিঙ্কটা দিয়েছিলাম সেদিন তো দিব্বি চলছিল। দাঁড়াও দেখি।

      ভিডিও লিঙ্কটা আবার দিলাম। একই লিঙ্ক অবশ্য। দেখ এবার দেখতে পাচ্ছ কিনা।

  • চাফি 8:31 pm on April 23, 2013 Permalink | Reply
    Tags: ,   

    চাপ সৃষ্টি করুন 

    মাঝে কদিন আসিনি। কিছু লিখতে ইচ্ছে করছিল না। মনের মধ্যে যেন অনেক অপরিচিত ক্ষোভ জমে ছিল। সেটা ঠিক ক্ষোভ, না অভিমান না লজ্জা তা জানি না। সে ভাষা নেই। তারপর দেখলাম কফিহাউজে তো সে সব নিয়ে কেউ কিছু লেখেন নি – তাই ভাবলাম আমার কথাগুলো না বললেও তো হত। কিন্তু তাও বলছি।

    কাগজের পাতায় চোখ বুলোলেই একের পর এক ধর্ষণের খবর চোখে পড়ে। কসমোপলিটন শহরের আধুনিকা থেকে ছাত্রী থেকে গ্রাম-বাংলার গৃহবধূ, কেউ যেন রেহাই পায় নি। বলিহারি মিডিয়া – এই ধরনের খবর পরিবেষনার সময়েও একটা রগরগে ব্যাপার হিসেবে তুলে ধরার বিষয়টা যেন তারা ভুলতে পারেন না। যাই হোক, চোখ আটকে গেল একটি শিশুর ধর্ষনে। এও সম্ভব? ভয়াবহতা যে কতটা তা বুঝে উঠতে পারছি। প্রতিবাদ করব কি? কলমের ডগা কাঁপছে। আসলে আমি নিজে যতই বড় বড় কথা বলি না কেন, ভেতরে ভেতরে তো আমিও সেই মুখচোরা, সুখী, ঘরকুনো টাইপ। আমার কথায় কি যায় আসে?

    সমস্ত ঘটনায় মনে হত আমাদের মধ্যে দুটো দুনিয়ার মানুষ বাস করেন। যত দিন যাচ্ছে – শুভবুদ্ধি আর অশুভশক্তির টানাপোড়েনটা যেন খুব কদর্যভাবে ফুটে উঠছে। কিন্তু একটু আগে একটা খবর দেখলাম যে এরকম নাকি অনলাইন গেম আছে যেখানে ধর্ষন করে পয়েন্ট জিততে হয়। এই গেম কে বানিয়েছে? নিশ্চয়ই দিল্লিতে পাঁচ বছরের শিশুর ধর্ষনে অভিযুক্ত অশিক্ষিত, বিকৃতমনষ্ক বিহারী নয় – নিশ্চয়ই কোন তথাকথিত শিক্ষিত মানুষেই? তাদের বিকৃতিটা ঠিক কোন পর্যায়ে, তারা ঠিক কতটা অসুস্থ?

    তবে যত বিপ্লব, যত প্রতিবাদ সব নিছক কলমেই। ঐ পুকুরে একটা ঢিক ছোড়ার মতই। খানিক বাদে সব নিঝুম, নিস্তরঙ্গ। আরে দাদা একটু উঠে বসুন, চাপ সৃষ্টি করুন।

     
    • ক্যাফে লাতে 4:24 am on April 24, 2013 Permalink | Reply

      তুমি এই অনলাইন গেম এর খবর আগে জানতে না? এগুলি মূলতঃ তৈরি হয় জাপানে, এবং এগুলি খুবই জনপ্রিয়। এর মধ্যে একটা আছে সেটাতে একজন ধর্ষক এক মা আর তার মেয়েদের ধর্ষণ করে। উইকিপিডিয়াতে এটার লিঙ্ক খুঁজে পেলামঃ http://en.wikipedia.org/wiki/RapeLay

      মিডিয়াতে এই রেপ ব্যাপারটা যত সোজা করে দেখা বা দেখানো হয় (বা বলা চলে যত উপভোগ্য করে দেখা বা দেখানো হয় ) তাতে আসল পরিস্থিতি বোঝা খুব মুশকিল। এ খুব জটিল সময়, আরো জটিল আমাদের বেঁচে থাকা।

      • চাফি 4:58 am on April 24, 2013 Permalink | Reply

        নাহ, সত্যিই জানতাম না। এ তো আরো ভয়াবহ ব্যাপার। সেটাই বলছি যে বিকৃতিটা ঠিক কোন পর্যায়ের তার ধারনা পাচ্ছি না।

        • ক্যাফে লাতে 5:09 am on April 24, 2013 Permalink | Reply

          চাফি, তুমি ফাজলামি কর মাঝে মাঝে, কিন্তু বোঝা যাচ্ছে তুমি নেহাতই এক সাদাসিধে ছেলে। ইন্টারনেটে এই ধরনের আরো অনেক গেম আছে। সেগুলির সম্পর্কে শুনতাম আমার প্রাক্তন কলিগদের কাছ থেকে। ধুর্ষণ ছাড়াও এই ধরনের খেলায় সম্মতি জানানো চরিত্ররাও থাকে, যারা নানারকম ভাবে খেলোয়াড়দের আকর্ষণ করে।
          এই বলতে মনে পড়ল – তুমি কি ‘সবিতা ভাবি’-র সম্পর্কে জান?

          • চাফি 7:36 am on April 24, 2013 Permalink | Reply

            অসাধারন, শুঁড়ির সাক্ষী মাতাল তাহলে। আমার রাগ এই কনসেপ্টটার ওপর।

            সবিতা ভাবি মানে কি সেই রগরগে কার্টুন ক্যারেক্টার? আজ থেকে বহু বছর আগে মনে হচ্ছে এরকম একটা কমিকস দেখেছিলাম। সেও তো একরকম মেয়েদের অশ্রদ্ধা জ্ঞাপন করার জন্যই।

    • কোল্ড কফি 5:59 am on April 24, 2013 Permalink | Reply

      :cd

      • চাফি 7:37 am on April 24, 2013 Permalink | Reply

        শুধু দীর্ঘশ্বাস ফেললেই হবে কোল্ড কফি?

    • এসপ্রেসো 8:47 am on April 24, 2013 Permalink | Reply

      মানুষের রুচি বিকৃত হওয়ার দুটো কারণ আমি জানি –
      ১. স্বাভাবিক চাহিদা পুরণ না হওয়া,
      ২. বিকৃত রুচির কোন ব্যক্তি বা মাধ্যমের সাহচর্য,

      বাকিগুলো করও জানা আছে কি……….?

      • চাফি 9:21 am on April 24, 2013 Permalink | Reply

        না ব্যাপারটা তো এখানেই সীমিত নেই। এখন যখন এই ধরনের গেম তৈরি হচ্ছে, তখন নিশ্চয়ই সমস্যাটা অনেক গভীরে।

        আবার মাঝে মাঝে এটাও মনে হয় এটা স্বীকার করে নেওয়া উচিত যে এই সব কিছুই অশিক্ষার ফসল।

        • এসপ্রেসো 9:54 am on April 24, 2013 Permalink | Reply

          আসলে আমাদের অনেকেই সুশিক্ষিত হলেও স্বশিক্ষিত হতে পারে না । সমস্যাটা মনে হয় এখানেই….

          • ক্যাফে লাতে 1:13 am on April 25, 2013 Permalink | Reply

            সমস্যাটা শিক্ষার নয়। সমস্যাটা অন্য। এবং অনেক গভীর।
            আর হ্যাঁ, সবিতা ভাবি সম্পর্কে আমি ওয়েব থেকেই জেনেছি। তবে এই ধরনের এক চরিত্র এবার সম্ভবত থাকছে বম্বে টকিজ এর কোন একটা ছোট ছবিতে। অভিনয় করছেন রানী মুখার্জি

c
Compose new post
j
Next post/Next comment
k
Previous post/Previous comment
r
Reply
e
Edit
o
Show/Hide comments
t
Go to top
l
Go to login
h
Show/Hide help
shift + esc
Cancel