Updates from চাফি Toggle Comment Threads | Keyboard Shortcuts

  • চাফি 8:31 pm on April 23, 2013 Permalink | Reply
    Tags: ,   

    চাপ সৃষ্টি করুন 

    মাঝে কদিন আসিনি। কিছু লিখতে ইচ্ছে করছিল না। মনের মধ্যে যেন অনেক অপরিচিত ক্ষোভ জমে ছিল। সেটা ঠিক ক্ষোভ, না অভিমান না লজ্জা তা জানি না। সে ভাষা নেই। তারপর দেখলাম কফিহাউজে তো সে সব নিয়ে কেউ কিছু লেখেন নি – তাই ভাবলাম আমার কথাগুলো না বললেও তো হত। কিন্তু তাও বলছি।

    কাগজের পাতায় চোখ বুলোলেই একের পর এক ধর্ষণের খবর চোখে পড়ে। কসমোপলিটন শহরের আধুনিকা থেকে ছাত্রী থেকে গ্রাম-বাংলার গৃহবধূ, কেউ যেন রেহাই পায় নি। বলিহারি মিডিয়া – এই ধরনের খবর পরিবেষনার সময়েও একটা রগরগে ব্যাপার হিসেবে তুলে ধরার বিষয়টা যেন তারা ভুলতে পারেন না। যাই হোক, চোখ আটকে গেল একটি শিশুর ধর্ষনে। এও সম্ভব? ভয়াবহতা যে কতটা তা বুঝে উঠতে পারছি। প্রতিবাদ করব কি? কলমের ডগা কাঁপছে। আসলে আমি নিজে যতই বড় বড় কথা বলি না কেন, ভেতরে ভেতরে তো আমিও সেই মুখচোরা, সুখী, ঘরকুনো টাইপ। আমার কথায় কি যায় আসে?

    সমস্ত ঘটনায় মনে হত আমাদের মধ্যে দুটো দুনিয়ার মানুষ বাস করেন। যত দিন যাচ্ছে – শুভবুদ্ধি আর অশুভশক্তির টানাপোড়েনটা যেন খুব কদর্যভাবে ফুটে উঠছে। কিন্তু একটু আগে একটা খবর দেখলাম যে এরকম নাকি অনলাইন গেম আছে যেখানে ধর্ষন করে পয়েন্ট জিততে হয়। এই গেম কে বানিয়েছে? নিশ্চয়ই দিল্লিতে পাঁচ বছরের শিশুর ধর্ষনে অভিযুক্ত অশিক্ষিত, বিকৃতমনষ্ক বিহারী নয় – নিশ্চয়ই কোন তথাকথিত শিক্ষিত মানুষেই? তাদের বিকৃতিটা ঠিক কোন পর্যায়ে, তারা ঠিক কতটা অসুস্থ?

    তবে যত বিপ্লব, যত প্রতিবাদ সব নিছক কলমেই। ঐ পুকুরে একটা ঢিক ছোড়ার মতই। খানিক বাদে সব নিঝুম, নিস্তরঙ্গ। আরে দাদা একটু উঠে বসুন, চাপ সৃষ্টি করুন।

     
    • ক্যাফে লাতে 4:24 am on April 24, 2013 Permalink | Reply

      তুমি এই অনলাইন গেম এর খবর আগে জানতে না? এগুলি মূলতঃ তৈরি হয় জাপানে, এবং এগুলি খুবই জনপ্রিয়। এর মধ্যে একটা আছে সেটাতে একজন ধর্ষক এক মা আর তার মেয়েদের ধর্ষণ করে। উইকিপিডিয়াতে এটার লিঙ্ক খুঁজে পেলামঃ http://en.wikipedia.org/wiki/RapeLay

      মিডিয়াতে এই রেপ ব্যাপারটা যত সোজা করে দেখা বা দেখানো হয় (বা বলা চলে যত উপভোগ্য করে দেখা বা দেখানো হয় ) তাতে আসল পরিস্থিতি বোঝা খুব মুশকিল। এ খুব জটিল সময়, আরো জটিল আমাদের বেঁচে থাকা।

      • চাফি 4:58 am on April 24, 2013 Permalink | Reply

        নাহ, সত্যিই জানতাম না। এ তো আরো ভয়াবহ ব্যাপার। সেটাই বলছি যে বিকৃতিটা ঠিক কোন পর্যায়ের তার ধারনা পাচ্ছি না।

        • ক্যাফে লাতে 5:09 am on April 24, 2013 Permalink | Reply

          চাফি, তুমি ফাজলামি কর মাঝে মাঝে, কিন্তু বোঝা যাচ্ছে তুমি নেহাতই এক সাদাসিধে ছেলে। ইন্টারনেটে এই ধরনের আরো অনেক গেম আছে। সেগুলির সম্পর্কে শুনতাম আমার প্রাক্তন কলিগদের কাছ থেকে। ধুর্ষণ ছাড়াও এই ধরনের খেলায় সম্মতি জানানো চরিত্ররাও থাকে, যারা নানারকম ভাবে খেলোয়াড়দের আকর্ষণ করে।
          এই বলতে মনে পড়ল – তুমি কি ‘সবিতা ভাবি’-র সম্পর্কে জান?

          • চাফি 7:36 am on April 24, 2013 Permalink | Reply

            অসাধারন, শুঁড়ির সাক্ষী মাতাল তাহলে। আমার রাগ এই কনসেপ্টটার ওপর।

            সবিতা ভাবি মানে কি সেই রগরগে কার্টুন ক্যারেক্টার? আজ থেকে বহু বছর আগে মনে হচ্ছে এরকম একটা কমিকস দেখেছিলাম। সেও তো একরকম মেয়েদের অশ্রদ্ধা জ্ঞাপন করার জন্যই।

    • কোল্ড কফি 5:59 am on April 24, 2013 Permalink | Reply

      :cd

      • চাফি 7:37 am on April 24, 2013 Permalink | Reply

        শুধু দীর্ঘশ্বাস ফেললেই হবে কোল্ড কফি?

    • এসপ্রেসো 8:47 am on April 24, 2013 Permalink | Reply

      মানুষের রুচি বিকৃত হওয়ার দুটো কারণ আমি জানি –
      ১. স্বাভাবিক চাহিদা পুরণ না হওয়া,
      ২. বিকৃত রুচির কোন ব্যক্তি বা মাধ্যমের সাহচর্য,

      বাকিগুলো করও জানা আছে কি……….?

      • চাফি 9:21 am on April 24, 2013 Permalink | Reply

        না ব্যাপারটা তো এখানেই সীমিত নেই। এখন যখন এই ধরনের গেম তৈরি হচ্ছে, তখন নিশ্চয়ই সমস্যাটা অনেক গভীরে।

        আবার মাঝে মাঝে এটাও মনে হয় এটা স্বীকার করে নেওয়া উচিত যে এই সব কিছুই অশিক্ষার ফসল।

        • এসপ্রেসো 9:54 am on April 24, 2013 Permalink | Reply

          আসলে আমাদের অনেকেই সুশিক্ষিত হলেও স্বশিক্ষিত হতে পারে না । সমস্যাটা মনে হয় এখানেই….

          • ক্যাফে লাতে 1:13 am on April 25, 2013 Permalink | Reply

            সমস্যাটা শিক্ষার নয়। সমস্যাটা অন্য। এবং অনেক গভীর।
            আর হ্যাঁ, সবিতা ভাবি সম্পর্কে আমি ওয়েব থেকেই জেনেছি। তবে এই ধরনের এক চরিত্র এবার সম্ভবত থাকছে বম্বে টকিজ এর কোন একটা ছোট ছবিতে। অভিনয় করছেন রানী মুখার্জি

  • চাফি 3:18 pm on April 12, 2013 Permalink | Reply
    Tags:   

    পশ্চিমবাংলার যা শোচনীয় অবস্থা (রাজনৈতিক আবহাওয়া) – তার একটা ভালো সহজ প্রতিকার আমার মাথায় আছে। দুপক্ষকে এক্কেবারে সামনাসামনি মাঠে নামিয়ে লড়িয়ে দাও। এই ফেসবুক বিপ্লব করে কিসস্যু হবে না। এর জন্যে চাই সামনা সামনি লড়াই – হাতেনাতে মারামারি। যার যত রাগ যার ওপরে – পুরোমাত্রায় উশুল করে নাও। তার পর যা বাকি থাকবে তারা শান্তিতে চল। সভ্য মানুষের মত চল।

    এখন যা চলছে তার জন্য শুধু ধিক্কার যথেষ্ট নয়। ভাবি মাঝে মাঝে, বাঙালি জাতটার তো বুদ্ধিশুদ্ধি ছিল এক কালে। তারপর কি যে হল?

     
    • ক্যাফে লাতে 9:29 am on April 13, 2013 Permalink | Reply

      তারপরে যেটা হল সেটাকে এক কথায় বলে -বার খাওয়া বাঙালি :hammer

      এই ‘বার থেকে বেরোতে আরো কয়েকটা প্রজন্ম লাগবে।

      • ইনফিউশন 4:44 am on April 17, 2013 Permalink | Reply

        ফেসবুক লড়াই টা আসলে কোনো লড়াই-ই ন্য়। আমার মতে ওটা একটা গা বাচিয়ে চলার কায়দা মাত্র

  • চাফি 12:27 am on April 5, 2013 Permalink | Reply
    Tags:   

    রাজা তোর কাপড় কোথায় 

    মৃত্যু সব সময়েই দুঃখজনক। একজন তরুন ছাত্রের মৃত্যু তো বটেই। কিন্তু আমার মনে হয় তার চেয়েও বড় দুঃখজনক এই যে সত্যিগুলো আমরা সবাই এড়িয়ে যাচ্ছি এবং আশা করছি ভবিষ্যতেও তাই চলতে থাকবে।

    একজন ছাত্রের মৃত্যু হল। কিভাবে মৃত্যু হল – আমি জানি না। যার দোষ তার শাস্তি হোক, এটা আমিও গলা খুলে বলব। কিন্তু তার আগে যে কিছু প্রশ্ন থেকে যাচ্ছে। একজন বাইশ বছরের ছাত্র, যখন সে তার মেধার মধ্যগগনে – তখন তার কি দরকার ছিল রাজনীতি করার? যদি তার শিক্ষার ক্ষেত্রে কোন বিষয়ে প্রতিবাদ করার বিষয় যদি থেকেই থাকে, তাহলে তার সঙ্গে স্কুল কলেজের বাইরের রাজনীতি মিলে মিশে এক হবে কেন? আমার তো প্রথমেই প্রশ্ন জাগছে যে কে বা কারা তাকে টেনে এনেছিল এই পথে? আমি যখনই ছাত্র রাজনীতির কথা শুনি, কোন সময়েই তাদের মধ্যে শিক্ষার মান উন্নয়নের কোন প্রয়াস দেখি না। কলেজে কলেজে দল পাকান, চাঁদা তোলা – ঝামেলা করা। পশ্চিমবঙ্গের এক প্রাইভেট কলেজ ছাড়া (যেখানে পয়সা দিয়ে পড়ার ভয় আছে বলেই) সব কলেজেই এক ছবি। সেখান থেকে কোন মুক্তি নেই – অথচ খুব সহজে তাদের উসকে যাচ্ছে একদল বৃদ্ধ শকুনের মত রাজনৈতিক শব।

    আজকের যুগে কোন কথা রাজনৈতিক রঙ চড়িয়ে না বললে যেন বলা যায় না। ভালো কে ভালো বলা যায় না – মন্দ কে মন্দ বলা যায় না। যেন কিছু বলতে গেলে পক্ষপাতিত্ব এসেই পড়বে। সেটা বাদ দিয়ে কি প্রতিবাদ হয় না? এত বছরের অপশাসনের পর অপদার্থতার নিদর্শন যখন এক এক চোখে আঙুল দিয়ে ভেসে উঠবে – আমরা কেউ কিচ্ছু বলব না? যাদের বলার ইচ্ছে আছে, তারা কিছু প্রতিবাদ করতে গেলেই কোন না কোন একপক্ষের রঙ গায়ে মেখে নিতে হবে কেন? গণতন্ত্রের নামে এরকম কেন হবে? যেটা ভন্ডামি তার প্রতিবাদ করার সময় সাহস করে কেন বলতে পারব না – ‘রাজা তোর কাপড় কোথায়?’

    একজন শিক্ষিত, সুস্থ মস্তিষ্কের মানুষ প্রতিবাদ করতে গেলে তাকে রাজনৈতিক আড়াল নিতে হবে কেন? মৃত্যুর প্রতিবাদ করছি। কিন্তু সেই সঙ্গে আরও বেশি করে প্রতিবাদ করছি ছাত্র রাজনীতি নামের এই ভড়ং কে।

    “অসতো মা সদগময়, তমসো মা জ্যোতির্গময়”

     
    • ক্যাফে লাতে 7:52 pm on April 6, 2013 Permalink | Reply

      কয়েকদিন একটু শরীর খারাপ থাকার কারণে , তার সাথে প্রচুর কাজের চাপ থাকায় অনলাইন হচ্ছিলাম না।

      তোমার সাথে এই বিষয়ে আমিও একমত চাফি। কলেজে রাজনীত হবে কেন, সেটা আমারও প্রশ্ন। নিজেদের স্বার্থে কতগুলো লোক অথবা দল , একগাদা সতেজ ছেলেমেয়েকে ব্যবহার করবে, তারপরে হয় তাদের ছুঁড়ে ফেলে দেবে, অথবা তাদের পরিণত করবে ঠিক নিজেদেরই মত স্বার্থ সন্ধানী , কপট চরিত্রে – এই একই গল্প কতদিন ধরে এবং কেন চলবে ?
      আমি পড়াশোনা করেছিলাম বেথুন কলেজে। কলকাতার হাতে গোনা কয়েকটি কলেজের মধ্যে একটি যেখানে ‘ছাত্র রাজনীতি ‘আর ‘রাজনীতি’ গুলিয়ে যায়নি। সেখানেও কলেজ ইলেকশন হত, কিন্তু সেটা সীমাবদ্ধ ছিল কলেজের ছাত্রীদের মধ্যেই। জানিনা আজকাল সেই কলেজে কি হয়। কিন্তু এই একটা কারণের জন্যেই, আমার কলেজ জীবন যথেষ্ট চাপের মধ্যে , এবং খানিকটা একঘেয়ে হলেও, শান্তিতে কেটেছে। আমি কলেজে পড়াশোনাই করেছি। আজকে ক্লাস হবে কিনা, কালকে পরীক্ষা বাতিল হবে কিনা, পরশু কেউ কাউকে গুলি করে মারবে কিনা, তরশু ভীড় বাসে করে বিক্ষোভ করতে যেতে হবে কিনা, সেই নিয়ে চিন্তা করতে হয়নি।
      আমি মনে করিনা, কলেজ রাজনীতি করলেই একজন মানুষ রাজনৈতিকভাবে সচেতন হয়ে ওঠে। আর আমি এটাও মনে করিনা, যে কোন কিছুর প্রতিবাদ করতে গেলে একটা রাজনৈতিক রঙ নিতে হবে। দুঃখের বিষয়, এই সহজ সত্যগুলি আমরা বুঝি, কিন্তু যাঁদের বেশি করে বোঝা উচিত, অথবা বুঝবেন বলে আমরা আশা করে থাকি, তাঁরা বোঝেন না। অথবা বুঝেও না বোঝার ভান করে থাকেন।
      এই অঙ্ক খুব কঠিণ। তোমার আমার মত সুস্থ মস্তিষ্কের , সচেতন কিন্তু নির্বিবাদী নাগরিকদের বোধগম্য হবে না।
      ছেলেটা যেখানেই থাক, ভাল থাক।

    • ক্যাপাচিনো 10:13 am on April 9, 2013 Permalink | Reply

      সহমত – কলেজে রাজনীতি চাই না। ছাত্রদের জন্য ভবিষ্যত চাই। এখন তো মনে হচ্ছে ছাত্রের মৃত্যুতে কেউ দুঃখী নয় – কারন তাই নিয়ে রাজনীতি করার অনেক রসদ পাওয়া গেছে।

  • চাফি 1:20 am on April 3, 2013 Permalink | Reply
    Tags:   

    দেখি তো কেউ চিনতে পারে কি না? 

    906275_10151502303857488_1597929257_o

     
    • ক্যাফে লাতে 7:19 am on April 3, 2013 Permalink | Reply

      এই যে চাফি, প্রশ্ন করার আগে ছবির নিচ থেকে নামটা কেটে বাদ দেওয়া উচিত ছিল কি না? 🙂 ছবিতে জুম করলেই তো নাম দেখা যাচ্ছে :ngakak

      • চাফি 10:44 am on April 3, 2013 Permalink | Reply

        ওটা তো হিন্ট, ওটা ছাড়াও কি চিনতে পেরেছো?

    • এসপ্রেসো 1:18 pm on April 4, 2013 Permalink | Reply

      :ngakak হা হা…নিচে নামটা দেওয়া বলে চিনতে পারলাম :alay

      • ক্যাপাচিনো 10:07 pm on April 4, 2013 Permalink | Reply

        :rate

  • চাফি 11:31 pm on April 2, 2013 Permalink | Reply
    Tags:   

    এক ঝলক আই-পি-এল দেখে মনে হল পয়সার জন্য লোকে কি না করে। একে তো ক্রিকেটের শেষ আভিজাত্যটুকু নিংড়ে নেওয়া হচ্ছে দিন দিন – আর তার ওপরে এখন ক্রিকেট খেলা দেখতে হলে নাকি নাচতে হবে। এই অনুষ্ঠানের চক্করে ফুটবল মাঠের তো দফারফা – শুনেছি ফুটবল ম্যাচগুলিকে কল্যানীতে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে। সাবাশ! এই তো চাই!

     
    • ক্যাফে লাতে 7:25 am on April 3, 2013 Permalink | Reply

      হ্যাঁ, আমি শুরুতে খানিক্ষণ দেখেছিলাম। দেখলাম ‘আগুনের পরশমণি’, ‘চিত্ত যেথা ভয়শূণ্য,’ এবং ‘ওম শান্তি ওম’ একই পর্যায়ে পড়ে। তারপরে কতধরনের নাচন কোঁদন। সেইসব করে শেষা অবধি কি বোঝানোর চেষ্টা করা হয়েছে জানিনা।মিনিট পনেরো কুড়ির পরে আর ধৈর্য ধরে দেখিনি। মাঝঝানে একবার দেখলাম গৌতম গম্ভীর বেচারা গম্ভীর মুখে কাপ হাতে নিয়ে একগুচ্ছ মেয়ের মাঝখানে এদিক থেকে ওদিক হেঁটে বেড়াচ্ছে- বোঝাই যাচ্ছে বিন্দুমাত্র স্বস্তিতে নেই।

    • ক্যাপাচিনো 10:08 pm on April 4, 2013 Permalink | Reply

      কপিল দেবকে নাচতে বলা হচ্ছিল মূল অনুষ্ঠান শুরু হওয়ার আগেই।

    • আজবদেশেঅমলা 11:35 pm on April 7, 2013 Permalink | Reply

      আই-পি-এল এর উদবোধন নিয়ে একটা দারুণ লেখা বেরিয়েছে ‘আনরিয়েল টাইম্‌স্‌- এ -পড়লে হাসতে হাসতে গড়িয়ে পড়বে।
      লিঙ্ক এইখানেঃ
      http://www.theunrealtimes.com/2013/04/03/ipl6-opening-ceremony-viewers-still-recovering-from-the-assault-on-the-senses/

    • ক্যাপাচিনো 10:06 pm on April 8, 2013 Permalink | Reply

      হ্যাঁ, দেখেছি তো। দারুন লিখেছে।

  • চাফি 5:24 pm on March 22, 2013 Permalink | Reply
    Tags: পশ্চিমবঙ্গ,   

    এইমাত্র শুনলাম – :bingung লোকসংখ্যা বাড়ছে বলে নাকি ধর্ষন বাড়ছে। প্রমান দর্শনীয়

     
    • এসপ্রেসো 8:27 pm on March 22, 2013 Permalink | Reply

      :cd

    • ক্যাপাচিনো 12:18 am on March 25, 2013 Permalink | Reply

      তাও ভালো উলটোটা বলেনি।

  • চাফি 2:28 am on March 16, 2013 Permalink | Reply
    Tags:   

    গান শোনা (৫) 

    এখানে তোমরা কেউ ‘Enigma’র গান শোন? ওদের প্রতিটি গান যেন এক অন্য জগতের কথা বলে। শুধু নামেই রহস্য নয়, সুরেও রহস্য। এরকমই একটি গান এটি। শিরোনাম – ‘La Puerta Del Cielo’।

    গানটির কথা শুনে বোঝা একেবারেই মুশকিল কারন একে ওদের ইংরাজি গানেই উচ্চারন বোঝা যায় না। তাই বুঝতে সুবিধের জন্য আমি লিরিক্স আছে এমন একটি ভিডিও দিলাম। তবে খুব একটা সুবিধে হবে না – কারন এই গানটি আসলে একটি ক্যাটালান ভাষায় রচিত। স্পেন এবং ফ্রান্সের সীমানা বরাবর অঞ্চলের স্থানীয় ভাষা। যদি কেউ আক্ষরিক ইংরাজি অনুবাদ পড়তে চান, তাহলে এই লিঙ্কে গিয়ে দেখতে পার।

    যদিও এই ভাষা খুব কম লোকেই হয়তো বলেন, কারন স্প্যানিশের সঙ্গে ক্যাটালানের প্রচুর ফারাক আছে, তবু বলব এরকম একটি গান আমরা শুনতেই পারি সুরের মাদকতার জন্য। কি বলো তোমরা?

     
    • ক্যাফে লাতে 7:38 pm on March 17, 2013 Permalink | Reply

      দেখ বাপু, পশ্চিমি গান শোনার ব্যাপারে আমি একটু প্রাচীন । এইসব এনিগমা ফেনিগমা বুঝিনা। যেসব গানের বেশ শব্দ গোটা গোটা বোঝা যাবে, সুর-টুর আছে, সেইসব বুঝি। তবে বলছ যখন, শুনে দেখব। ভাল লাগতেও পারে। আমার পছন্দের গান ও নাহয় শোনাব কয়েকটা। :kr

  • চাফি 1:03 am on March 16, 2013 Permalink | Reply
    Tags: , ,   

    এইমাত্র এখানে দেখলাম যে ব্যোমকেশ নিয়ে এবার সিনেমা করছেন ঋতুপর্ণ এবং সেখানে ব্যোমকেশ হতে চলেছেন সুজয় ঘোষ। এটা খুব সম্ভবতঃ অঞ্জন দত্তর সাথে কনট্র্যাক্টের দুর্ভোগ। যাই হোক, আরও একজন নতুন ব্যোমকেশ। দেখা যাক কেমন হয়।

     
    • ক্যাফে লাতে 7:40 pm on March 17, 2013 Permalink | Reply

      তুমি কি আশা করেছিলে? ঋতুপর্ণ ঘোষ আবার আবীর চ্যাটার্জিকেই ব্যোমকেশ করবেন? :cystg

  • চাফি 6:59 pm on March 12, 2013 Permalink | Reply
    Tags:   

    বড় বড় লোকে প্রচুর বাণী দিয়ে গেছেন। তা আমরাই বা কম যাই কেন?

    ফেসবুকে বন্ধুর সংখ্যা যেমন বাড়ছে, তেমনি পাল্লা দিয়ে বাড়ছে বিরক্তিকর ছবি ও দেশ বিদেশের আপডেট।
     
    • ক্যাফে লাতে 11:57 am on March 13, 2013 Permalink | Reply

      আচ্ছা!! তাই নাকি। তাহলে আমিও বানী ভাবি একটা। ফ্রি তে জ্ঞান দেওয়ার সুযোগ ছাড়ি কেন :toast

  • চাফি 9:16 pm on March 4, 2013 Permalink | Reply
    Tags:   

    গান শোনা (৩) 

    অনেক দিনের মধ্যে হিন্দি সিনেমায় এত ভালো গান শুনি নি। গানটি ‘ভিকি ডোনার’ সিনেমা থেকে। যারা সিনেমটি দেখেন নি – দেখলে মনে হয় পছন্দই করবেন। শুনেছি এই গানটি নাকি নায়ক নিজেই লিখেছেন, সুর দিয়েছেন এবং গেয়েছেনও।

     
    • ক্যাফে লাতে 9:43 pm on March 4, 2013 Permalink | Reply

      হ্যাঁ, এই গানটা আমারও খুব পছন্দ :kr

c
Compose new post
j
Next post/Next comment
k
Previous post/Previous comment
r
Reply
e
Edit
o
Show/Hide comments
t
Go to top
l
Go to login
h
Show/Hide help
shift + esc
Cancel