সসসোতি / স্বরসতি / সরসতি/ পুজোর দিন যা যা করতে নেই আর করতে আছে…

যা যা করতে নেইঃ
১। বই-খাতার দিকে তাকাতে নেই, পরাসোনা করতে নেই। মা হেব্বি পাপ দেবে।
২। অঞ্জলি না দিয়ে টোপা বা নারকেলি, কোন কুল খেতে নেই।
৩। ভুলেও কোন লেখা পরে-টরে ফেললে মুস্‌কিল- মা সরসতি রেগে যাবে।
৪। তারাতারি বারি ফিরতে নেই, যত রাত তত ভাল।

যা যা করতে আছেঃ
১। মেয়েদের হলুদ সারি পরতে হবে, ছেলেদের পাঞ্জাবি । চোকে সাংগ্লাস পরতে হবে, না হলে ঝারি করতে অসুবিদে।
২। মেয়েদের ঝিঙ্কু সাজতে হবে- একেবারে কোয়েল-কারিনা, আর ছেলেদের সব একদম দেব-সলমন।
৩।দুপুরে খিচুরি খেতে হবে। সেটা ইস্কুলে বা পারার ক্লাবে বা কোচিন সেন্টারে সবার সাতে বসে খেতে হবে। যারা বারিতে খিচুরি খায় এই দিনে, তাদের জিবন একদম বেরঙ্গিন।
৪।সাইকেল, বাইক, স্কুটার নিয়ে মেয়েদের স্কুলের সামনে ভির করতেই হবে। আজকের দিনে স-অ-ব মেয়ে পটতে রাজি। একবার বাইকের পেছনে চাপাতে পারলেই একেবারে হ্যাপি হ্যাপি দিন, লাইফ মেহেফিল।
৫। বিকেলে দুজনে মিলে সিনেমা, চিড়িয়াখানা, ভিক্টোরিয়া বা বইমেলা, অবসসই যাওয়া উচিত।

(হে মা সসসোতি / স্বরসতি / সরসতি, বানাম-টানাম অনেক ভুল হল, খমা করে দিও। আর এবারে যেন পাস-টাস করে যাই, না হলে মা বলেছে হেবি পেটাবে)