কলকাতা ঘুরে গেল বিশ্বকাপ, সঙ্গে প্রাক্তন ব্রাজিলিও অধিনায়ক। টিভি-তে প্রচারিত হতে দেখা গেল ভারতীয় বিখ্যাত সব খেলোয়াড়েরা উপস্থিত থেকে সেই কাপকে স্বাগত জানাচ্ছেন। পরদিন কাগজেও দেখলাম। ভারতীয় খেলোয়াড় বলতে দেখলাম শচীন তেন্ডুলকার আর সৌরভ গাঙ্গুলী!
স্বাগত জানানো হল ফুটবল বিশ্বকাপের ট্রফি, আর তা জানালেন ক্রিকেট খেলোয়াড়েরা! ভারতে ফুটবল যথেষ্ট গুরুত্ব সহকারে খেলা হয় কিনা সেটা অজানা থেকে গেল ব্রাজিলের সেই ভদ্রলোকের কাছে!
যদি বিশ্বকাপকে ফুটবলে সীমাবদ্ধ না রেখে সব খেলার মধ্যে ছড়িয়ে দিতে চাওয়া হয়ে থাকে, তাহলেও সেদিন কলকাতায় উপস্থিত থাকা বিশ্বনাথন আনন্দকে ডাকা যেত নিশ্চয়ই।
পরে জানলাম ঐ অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন চুনী গোস্বামীসহ আরও কেউ কেঊ। অবশ্য দর্শক হিসেবে !
প্রদীপ ব্যানার্জি, চুনী গোস্বামী (এঁরা এশিয়ান কাপ জয়ী ভারতীয় দলের সদস্য) বা বদ্রু ব্যানার্জির (১৯৫৬-এর ভারতীয় অলিম্পিক দলের অধিনায়ক, যেখানে ভারত ৪র্থ স্থান পেয়েছিল) মত খেলোয়াড়দের নিশ্চিতই ডাকা যেত, আর এতে দেশের সম্মানই বাড়ত বোধ হয়! অথচ তাঁরা অচ্ছুৎই রয়ে গেলেন! নিদেন পক্ষে হাতের কাছে বাইচুং ভুটিয়াও ত ছিলেন, নাকি ? এঁদের কাউকে কি আমন্ত্রন করা যেত না ?