টিভি যন্ত্রনা

আড্ডা-১৮ (২৬/৯/১৩)

টিভি নিয়ে আরও কিছু। অবশ্য ঠিক টিভিও নয়, মানে ওটা থাকলে কি হয় তাই আর কি! মানে, আমার ঘুম মাথায় উঠেছে গত মাস ছয়েক হল। কারণ, পাশের বাড়ির নতুন টিভি!
ভদ্রলোক রিটায়ার করার পর আমার মত একটা বাক্সমার্কা টিভি থাকা সত্ত্বেও দেওয়ালে ঝোলাবার জন্য আর একখানা কিনে ফেললেন! নতুনটা স্ত্রীকে উপহার দিয়ে পুরনোটা নিজের ঘরে (এঘরে দিনের বেশীর ভাগ সময় কাটান, সাধারনত নিজের পছন্দমত অনুষ্ঠান দেখেন) রেখেছেন। এদিন থেকেই আমার যন্ত্রনা শুরু!

নতুনটা এমন জায়গায় ঝোলানো হল যা আমার ঘরে বসে সরাসরি দেখা যায়। তাতে কোন অসুবিধা নেই, জানালা বন্ধ করলেই চলে। কিন্তু শব্দ ? আমাদের যে একখানা নতুন টিভি হয়েছে, সেটা অন্যান্য বাসিন্দাকে জানানোটাও দরকার! আর এটাও জানানো দরকার যে আমি খুব সঙ্গিতরসিকাও বটি! সুতরাং গাঁক গাঁক শব্দে টিভি’র চলা শুরু! এইসব দেয়ালে ঝোলানো টিভিতে আবার এফ এম রেডিও-ও আছে, আর তার কোনও চ্যানেলে অতি ভোরে (বোধ হয় ৫টাতে) ভক্তিগীতি শুরু হয়! আমাদের সঙ্গিতপ্রিয় প্রতিবেশীনীর সঙ্গীতরস পানের সেই শুরু! শুরুটা যে হয় বেশ উচ্চগ্রামে তা বলাই বাহুল্য। ভোরের ঘুমটা চটকে লাট একেবারে!

সে গান শেষ হতে না হতেই বিভিন্ন টিভি চ্যানেলে শুরু হয় প্রাতঃকালীন গানের আসর। সুতরাং হাতের রিমোট-এর এফ এম ছেড়ে সেই সব চ্যানেলগুলোতে ঘোরাফেরা শুরু হয়। ভেবে পাই না তিনি কোন গান ভালবাসেন বা শোনেন! গানের পর আছে বিভিন্ন জায়গায় খবর শোনা। তার পর নানা চ্যানেলে বাংলা-হিন্দী মিশিয়ে নানা মেগাসিরিয়াল। শেষ পাতে রাতের দিকে হিন্দী সিনেমা, যা চলে রাত একটা/দেড়টা পর্যন্ত। এর মধ্যে আবার ভদ্রলোকের রাজনৈতিক তর্কবিতর্কের সান্ধ্য আসরটি শোনার ইচ্ছে যেদিন হয় সেদিন ত চিত্তির! দু’টি মাইক সদৃশ আওয়াজ। হঠাৎ পুজো প্যান্ডেলের কথা মনে পড়ে যায়! আবাসনের ঘরগুলোর যা সাইজ তাতে অতি কম ভল্যুমেও দিব্যি শোনা যায়। তা সত্ত্বেও অত জোর আওয়াজে টিভি চালানো কেন বুঝি না। কিছু বলতেও ভরসা হয় না, পাছে শুনতে হয়, “আপনাদেরটাও ত জোরে চলে, আমাদের অসুবিধা হয়, আর তাতেই জোরে চালাতে হয়”। অথচ নীচু আওয়াজে শোনার জন্য অর্ধাঙ্গিনীর গঞ্জনা শোনা আমার নিত্যনৈমিত্তিক রুটিন!

নিজেদের টিভি শোনার দফা রফা, পাছে ধমক খাই পাশের বাড়ির শান্তি নষ্টের অপবাদ ঘাড়ে এসে পড়ে! কি যে করি, ভারি বিপদে পড়া গেছে! তবে একটা ভরসা হচ্ছে ক’দিন হল, বোধ হয় প্রতিবেশীনীর কান এবং টিভি শোনার ইচ্ছে, দুটোই ক্লান্ত হয়েছে! তেমনই ইঙ্গিত পাচ্ছি!!