মিউজিক ওয়ার্ল্ড বন্ধ হয়ে যাচ্ছে, অর্থাৎ সিডি, ক্যাসেট, রেকর্ড — এ সব পাওয়ার আর কোন সুযোগ
থাকল না। আরও বড় বড় দোকানও নাকি বন্ধ হতে চলেছে। তবে পাড়ার ছোট খাটো দোকান এখনও কিছুদিন চালু
থাকবে। কারও ইচ্ছে থাকলে এখনই যোগাড় করার শেষ সুযোগ রয়েছে, সেই সব জায়গায়।
কিন্তু করার কিছু নেই। নতুন প্রযুক্তি এসে গেছে। আর কে না জানে ” ওল্ড অর্ডার চেঞ্জেথ, ইল্ডিং প্লেস টু
নিউ”! ( উদ্ধৃতিটা এমনই ছিল মনে হয়, ছোট বেলায় পড়া ত, ভুল হতেও পারে)।
এডিসনের ফোনগ্রাফ বা তাতে রেকর্ড করার মোমের চোং বা রেকর্ড দেখিনি, তার সম্পর্কে বইতে পড়েছি।
পরবর্তি প্রজন্মের হাতল ঘোরানো চোং লাগানো গ্রামোফোন এবং ৭৮ স্পীডের গালার রেকর্ড দেখেছি এবং ব্যবহার করেছি। পরে রেডিওগ্রাম, রেকর্ড প্লেয়ার আর প্লাস্টিকের ইপি, এলপি রেকর্ড, টেপ রেকর্ডার এবং ক্যাসেট, এবং শেষে সিডি আর তার প্লেয়ার অথবা ল্যাপটপ এল, সকলে চুটিয়ে উপভোগও করল। এ প্রজন্মের অনেকেই এসব ব্যবহার করেছে। আমিও করেছি।
তবে এবার আমার হোঁচট খাবার পালা! এখন যে পদ্ধতিতে গান শোনা হবে সেটা হল ডিজিটাল পদ্ধতি।
আইপড, ল্যাপটপ, মোবাইলে বিভিন্ন সাইট থেকে সংগ্রহ করে শুনতে হবে!
এ ব্যাপারটা আমার কাছে এমনই অদ্ভুতুরে যে বলার কথা নয়। চেষ্টা করলে বুঝে নেওয়া যায়, তবে অত
ধৈর্য্য থাকবে কি ? বলা ভারি মুশকিল!
গায়ক-গায়িকারাও মহা ঝামেলায় পড়বেন, গানগুলো থাকবে কিসে ? না রেকর্ড, না ক্যাসেট, না সিডি !
কোথা থেকে গানগুলো আপলোড হবে, নাকি গায়করা অন্য কোন ভাবে সেটা করবেন, ইত্যাদি নানা প্রশ্ন থেকে
যাচ্ছে। হয়ত কোন সহজ সমাধান আছে আমার জ্ঞানের সীমার বাইরে, যা ক্রমশঃ প্রকাশ্য! অবশ্য কোন
সমস্যার সমাধানই শেষ পর্য্যন্ত অধরা থাকে না! শেষ পর্য্যন্ত পরবর্তী প্রজন্মের দ্বারস্থ হতে হবে আমার সমস্যা
সমাধানের জন্য!
এছাড়া বিকল্প কি ?